শুক্রবার , ১৪ই জুন, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ
×

‘দুষ্টু পোলাপাইন’ঐশী ডামাঢোলে

 গানের কণ্ঠশিল্পী ফাতেমা তুয যাহরা ঐশী ‘দুষ্টু পোলাপাইন’। সানি লিওনের সঙ্গে নেচে গেয়ে বেশ আলোচনার জন্ম দিয়েছিলেন এই শিল্পী। ওই গানটি দিয়ে ঐশী ভালোই জমিয়ে দিলেন গান বাজার। ঐশীর গায়কি ঢং তো আছেই সেইসঙ্গে ওই গানচিত্রের অন্যতম চমক ছিল সানি লিওনির পারফর্মেন্সও। এরপর তারই ধারাবাহিকতায় ঐশীর সঙ্গে আরেক মিউজিক ভিডিওতে দেখা গেছে আফগান বংশোদ্ভূত বলিউড নায়িকা ওয়ারিনা হুসাইনকে। ‘গাড়ির মেকানিক’ নামের ওই গানচিত্রটিতেও ঐশীর পারফর্মেন্স ছিল চোখে পড়ার মতো। যতই পরিণত হওয়ার দিকে এগিয়ে যাচ্ছেন ঐশী ততই যেন তার গানের মৌতাতেও যেন দর্শক-শ্রোতার বাজার জমিয়ে তুলছেন।

‘গাড়ির মেকানিক’ নামের মিউজিক ভিডিওটি প্রকাশ করেছে টিএম রেকর্ডস। গানটির কথা-সুর ও সঙ্গীতায়োজনে ছিলেন কৌশিক হোসাইন তাপস। ফারজানা মুন্নীর প্রযোজনা ও স্টাইলিংয়ে গানটির ভিডিও নির্মাণে ছিলেন বলিউড নির্মাতা আদিল শেখ। গানটির মধ্য দিয়ে এই প্রথম বাংলাদেশের গানে মডেল হয়েছেন ওয়ারিনা হুসাইন। এভাবেই একের পর এক গানচিত্রে খ্যাতনামা মডেলের সঙ্গে নিত্যনতুন পারফর্মেন্স আর দারুণ ডামাঢোলের মধ্য দিয়ে আলোচিত হয়ে উঠছেন এ কণ্ঠশিল্পী ঐশী।

নতুন প্রজন্মের হিসেবে যেমন আধুনিক গানে তেমন ফোক গানেও পারদর্শী এই কণ্ঠশিল্পী। এরই মধ্যে শ্রোতাপ্রিয় বেশকিছু গান উপহার দিয়েছেন তিনি। অন্যদিকে বেশ অল্প সময়ের ক্যারিয়ারেই শ্রোতার কাছাকাছি পৌঁছে যেতে সক্ষম হয়েছেন নতুন প্রজন্মের এই কণ্ঠশিল্পী। ইমরান মাহমুদুলের সঙ্গে তার ঐশী এক্সপ্রেস ও আরিফিন রুমির সঙ্গে তার ‘দেহোবাজি’ অ্যালবামের জন্য তিনি সবচেয়ে বেশি পরিচিত। ‘মায়া: দ্য লস্ট মাদার’ চলচ্চিত্রে ‘মায়া, মায়া রে’ গানটির জন্য ২০২০ সালে তিনি শ্রেষ্ঠ নারী কণ্ঠশিল্পী বিভাগে জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার লাভ করেন তিনি।

মাস দুয়েক রাজনৈতিক ডামাঢোলের কারণে গানে সেইভাবে ব্যস্ত সময় পার না করতে পারলেও বর্তমানে ঐশী ব্যস্ত সময় পার করছেন স্টেজ শো নিয়ে। বিশেষ করে নির্বাচনের পর পর তার ব্যস্ততা যেন আরও বেড়েছে। তবে, স্টেজেও ব্যস্ত থাকতে হচ্ছে তাকে চিকিৎসা পেশা সামলেই। কারণ ডাক্তারি পড়াশোনো শেষে এখন তিনি এ সেবায় নিয়োজিত। যদিও পড়াশোনারও আরও কিছু বাকি রয়েছে। সব সামলে গানে সরব থাকাটাতো কষ্টকরই- কী বলেন? এর উত্তরে ঐশী বলেন, ‘তাতো অবশ্যই। যদিও আমার অভ্যাস আছে। কারণ আমি যখন মেডিকেলে পড়াশোনা করি তখনো গান করেছি।’

একসঙ্গে এই দুটোর ভারসাম্য রক্ষা করেন কীভাবে- এমন প্রশ্নে রুনা লায়লাকে অনুসরণ করা ঐশী বলেন, ‘দুটো সামলাতে কষ্ট হয়। তবে এই কষ্ট সহ্য করেই দুটোই একসঙ্গে চালিয়ে নিচ্ছি। এমনো সময় গেছে স্টুডিওতেও আমি বই নিয়ে গেছি। রেকর্ডিংয়ের ফাঁকে ফাঁকে পড়েছি।

তার ফলটাও এখন পাচ্ছি। আমি মনে করি ইচ্ছাশক্তি থাকলে অনেক কিছুই সম্ভব।’ এখনকার ব্যস্ততা প্রসঙ্গে ঐশী বলেন, ‘এখন শো নিয়েই ব্যস্ততা বেশি। কারণ এটা শোয়ের মৌসুম। এর বাইরে নতুন একটি গান করেছি ‘টিকেট’ ওয়েব ফিল্মে। দ্রুতই এটি শুনতে পারবেন দর্শক। আরও কয়েকটি একক মৌলিক গানও তৈরি হয়ে আছে। সেগুলোও নির্দিষ্ট সময় পরপর প্রকাশ পাবে ভিডিওসহ।’