শনিবার , ১৫ই জুন, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ
×

গলা চেপে ধরার হুমকি ডিনের একাডেমিক কাউন্সিলের সভায় চবি শিক্ষককে

একাডেমিক কাউন্সিলের সভায় দুই শিক্ষকের মধ্যে কথা কাটাকাটি ও উত্তপ্ত বাক্য বিনিময়ের ঘটনা ঘটেছে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে (চবি)  । ঘটনার এক পর্যায়ে কলা ও মানববিদ্যা অনুষদের ডিন প্রফেসর ড. মাহবুবুল হক এক শিক্ষককে ‘গলা চেপে ধরব’ বলে তেড়ে যান বলে অভিযোগ উঠেছে। গত মঙ্গলবার বিশ্ববিদ্যালয়ের ২৪৪তম একাডেমিক কাউন্সিলের সভায় এ ঘটনা ঘটে। গতকাল বুধবার এর সুবিচার ও নিরাপত্তা চেয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য বরাবর চিঠি দিয়েছেন ভুক্তভোগী শিক্ষক প্রাণ রসায়ন ও অনুপ্রাণ বিজ্ঞান বিভাগের প্রফেসর ড. মু. গোলাম কবীর।

জানা যায়, প্রফেসর গোলাম কবীর ও ডিন ড. মাহবুবুল হকের মধ্যে কথা–কাটাকাটি হচ্ছিল। এ সময় উপাচার্য তাদের শান্ত হতে বলছিলেন। দুজনের কথা–কাটাকাটির একপর্যায়ে ডিন উত্তেজিত হয়ে চট্টগ্রামের ভাষায় বলে ওঠেন, ‘গলা চিবি ধইয্যুম এক্কোবারে’ (একবারে গলা চেপে ধরব)। এ সময় বাণিজ্য অনুষদের ডিন প্রফেসর হেলাল নিজামী কলা অনুষদের ডিন মাহবুবুল হককে নিবৃত্ত করা চেষ্টা করেন।

জানতে চাইলো প্রফেসর গোলাম কবীর বলেন, একাডেমিক কাউন্সিলের সভায় একটা এজেন্ডা আলোচনার সময় আমি ভিসিকে সাপোর্ট করলাম, ওনার (ডিন) সঙ্গে তখন দ্বিমত হচ্ছিল, হঠাৎ করেই ‘বেয়াদব’, ‘গলা চেপে ধরব’ বলে তিনি আমার দিকে তেড়ে আসেন। অন্য ডিনরা না থামালে তিনি হয়তো শারীরিকভাবে লাঞ্ছিত করতেন।

তিনি বলেন, একটা এজেন্ডা ছিল, লিখিত পরীক্ষা ছাড়া কীভাবে জাতীয় খেলোয়াড়দের নেয়া যায়। তিনি (ডিন) বলছিলেন এভাবে হলে নৈরাজ্য হবে। আমি বললাম, একটা সিস্টেম ডেভেলপ করলে নৈরাজ্য হবে কেন। এভাবে দ্বিমত হতে হতে হঠাৎ তিনি ক্ষিপ্ত ও মারমুখী হয়ে ওঠেন।

ঘটনার বর্ণনা দিয়ে চিঠিতে তিনি লেখেন, এ ঘটনায় আমি অত্যন্ত মর্মাহত ও মানসিকভাবে বিপর্যস্ত। বর্তমানে আমি চরম নিরাপত্তাহীনতা বোধ করছি। এ অবস্থায় এ বিষয়ে আপনার কাছ থেকে সুবিচার প্রত্যাশা করছি এবং আমার নিরাপত্তা বিধানের প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের অনুরোধ করছি। এ ব্যাপারে কলা ও মানববিদ্যা অনুষদের ডিন প্রফেসর ড. মাহবুবুল হকের মুঠোফোনে কল দিলেও কোনো সাড়া পাওয়া যায়নি।