শনিবার , ১৫ই জুন, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ
×

তৃণমূল নেতাদের আমন্ত্রণ গণভবনে আ. লীগের বিশেষ বর্ধিত সভায়

তৃণমূল নেতাদের আমন্ত্রণ জানানো হয়েছে দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ২২৩টি আসন জিতে টানা চতুর্থবারের মতো সরকার গঠনের পর গণভবনে ‘বিশেষ বর্ধিত সভা’ ডেকেছে আওয়ামী লীগ। আগামী ১০ ফেব্রুয়ারি সকাল সাড়ে ১০টায় গণভবনে অনুষ্ঠিতব্য এ বর্ধিত সভায় । বর্ধিত সভায় সভাপতিত্ব করবেন আওয়ামী লীগ সভাপতি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

নির্বাচন পরবর্তী দলের এই বিশেষ বর্ধিত সভায় তৃণমূলের নেতাদের আমন্ত্রণ জানানোর ফলে সারাদেশের মতো চট্টগ্রাম মহানগর, উত্তর ও দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি–সাধারণ সম্পাদক ছাড়াও চট্টগ্রামের ১৬ আসনে নির্বাচিত সংসদ সদস্যগণ (দলের এবং স্বতন্ত্র মিলে ১৬ জন), চট্টগ্রাম সিটি মেয়র, জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান, মহানগরীর ১৫ থানার সভাপতি–সাধারণ সম্পাদক, আহ্বায়ক, যুগ্ম আহ্বায়কগণ, উত্তর ও দক্ষিণ জেলার ১৫ উপজেলার ৩০ জন সভাপতি–সাধারণ সম্পাদক, ১৫ উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান, কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের দুই উপদেষ্টাসহ কেন্দ্রীয় নেতারা উপস্থিত থাকবেন। গতকাল সোমবার আওয়ামী লীগের দপ্তর সম্পাদক ব্যারিস্টার বিপ্লব বড়ুয়া স্বাক্ষরিত এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, আগামী শনিবার (ফেব্রুয়ারি ১০) সাড়ে ১০টায় গণভবনে এ সভা অনুষ্ঠিত হবে। বিশেষ বর্ধিত সভায় বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের জাতীয় কমিটি, কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী সংসদ, উপদেষ্টা পরিষদের সদস্যবৃন্দ, জেলা/মহানগর ও উপজেলা/ থানা/ পৌর (জেলা সদরে অবস্থিত পৌরসভা) আওয়ামী লীগের সভাপতি, সাধারণ সম্পাদকরা, জাতীয় সংসদের দলীয় ও স্বতন্ত্র সদস্যরা, জেলা পরিষদ ও উপজেলা পরিষদের দলীয় চেয়ারম্যানরা, সিটি কর্পোরেশন ও পৌরসভার দলীয় মেয়ররা এবং সহযোগী সংগঠনসমূহের কেন্দ্রীয় সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকরা উপস্থিত থাকবেন। আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বিশেষ বর্ধিত সভায় সংশ্লিষ্ট সকলকে যথাসময়ে উপস্থিত থাকার জন্য অনুরোধ জানিয়েছেন।

আওয়ামী লীগের বর্ধিত সভায় যোগদান প্রসঙ্গে দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মফিজুর রহমান আজাদীকে বলেন, নানা ষড়যন্ত্র মোকাবেলা করে আওয়ামী লীগ সভাপতি মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সারাবিশ্বের কাছে গ্রহণযোগ্য একটি নির্বাচন উপহার দিয়েছেন। অবাধ সুষ্ঠু নির্বাচনে আমাদের দলের তৃণমূলের নেতাকর্মীরা অনেক পরিশ্রম করেছেন। নির্বাচন পরবর্তী দলের এই বিশেষ বর্ধিত সভায় আমাদের তৃণমূলের নেতাকর্মীদের ডেকেছেন। বর্ধিত সভায় দক্ষিণ জেলা থেকে ৮ উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি–সাধারণ সম্পাদক এবং উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যানগণও যাবেন।

চট্টগ্রাম উত্তর জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শেখ আতাউর রহমান আজাদীকে বলেন, গণভবনে বর্ধিত সভায় আমরা জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি–সাধারণ সম্পাদক ছাড়াও ৭ উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি–সাধারণ সম্পাদক এবং উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যানগণ অংশগ্রহণ করবেন। আমরা এখান থেকে যে যার সুবিধা মত ঢাকায় গিয়ে গণভবনে এক সাথে যাবো।

এদিকে মহানগর আওয়ামী লীগের প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক শফিকুল ইসলাম ফারুক বলেন, গণভবনে বর্ধিত সভায় আমরা মহানগরীর ১৫ থানার ৩৩ সভাপতি–সাধারণ সম্পাদক, আহ্বায়ক ও যুগ্ম আহ্বায়কদের নিয়ে যাবো। আমরা যাওয়ার ব্যাপারে মহানগর আওয়ামী লীগ এরমধ্যে বসে সিদ্ধান্ত নেবো কিভাবে যাবো।